বৃহস্পতিবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১০:১৪ পূর্বাহ্ন

সাংবাদিকের বিরুদ্ধে ১০ কোটি টাকার মানহানির মামলা

উখিয়া সংবাদ ডেস্ক :
  • আপডেট টাইম :: মঙ্গলবার, ১৫ সেপ্টেম্বর, ২০২০

সিরাজগঞ্জ টেলিভিশন সাংবাদিক ফোরামের সাধারণ সম্পাদক এবং এটিএন বাংলা ও এটিএন নিউজের জেলা প্রতিনিধি ফেরদৌস হাসানের বিরুদ্ধে ১০ কোটি টাকার মানহানির মামলা করা হয়েছে। জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও সাবেক মন্ত্রী আবদুল লতিফ বিশ্বাস এবং তার স্ত্রী বেলকুচি পৌরসভার মেয়র আশানূর বিশ্বাস মামলাটি করেন।

মঙ্গলবার বিকেলে সিরাজগঞ্জ প্রথম সাব জজ আদালতের বিচারক মো. সাইফুল ইসলাম মামলাটি আমলে নিয়ে শুনানির জন্য ২৪ সেপ্টেম্বর তারিখ ধার্য করেন।

বাদীপক্ষের আইনজীবী অ্যাডভোকেট নাসিম হায়দার হাকিম জানান, গতকাল সোমবার জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আবদুল লতিফ বিশ্বাস ও বেলকুচি পৌর মেয়র আশানুর বিশ্বাস যৌথভাবে বাদী হয়ে আদালতে মামলাটি দায়ের করেন। আজ বিচারক মামলাটি আমলে নিয়ে শুনানির জন্য দিন ধার্য করেছেন।

তিনি জানান, মামলার অন্যতম বাদী আবদুল লতিফ বিশ্বাস বারবার জনপ্রতিনিধি হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন। তিনি দুবার ইউপি চেয়ারম্যান, উপজেলা চেয়ারম্যান ও দুবার সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়ে সরকারের মন্ত্রী হিসেবে দায়িত্বও পালন করেছেন। বর্তমানে তিনি জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতির দায়িত্বে রয়েছেন। অপর বাদী আশানুর বিশ্বাসও বারবার নির্বাচিত সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান ও বর্তমানে পৌর মেয়র হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।

নাসিম হায়দার হাকিম জানান, বিবাদী সাংবাদিক ফেরদৌস হাসান বাদী দম্পতিকে সামাজিক ও রাজনৈতিকভাবে হেয় প্রতিপন্ন করার উদ্দেশে তার কেবল নেটওয়ার্ক ব্যবসার এলাকা জবরদখলমুক্ত করা প্রসঙ্গে ২৯ জুলাই বাদীদের লিখিত নোটিশ দেন। নোটিশে উল্লেখ করা হয়, বাদীরা তাদের জামাতার ছোট ভাই সাজ্জাদুল হক রেজাকে দিয়ে বেলকুচি পৌর এলাকার কেবল নেটওয়ার্ক লাইন জবর দখল করে প্রায় এক হাজার গ্রাহকের কাছ থেকে মাসিক দেড় লাখ টাকা করে ৭০ মাসে প্রায় ১ কোটি ৫ লাখ টাকা আদায় করেছেন।

তিনি জানান, ওই টাকা ফেরতের জন্য এবং ব্যবসায়ী এলাকা দখলমুক্ত করে বুঝিয়ে দেওয়ার জন্য বাদীগণকে নোটিশ দেওয়া হয়। এ ছাড়া দীর্ঘ ৬-৭ বছর ধরে বাদীদের সঙ্গে সাজ্জাদুল হক রেজার কোনো ব্যক্তিগত বা রাজনৈতিক সম্পর্ক নেই। বিষয়টি জানার পরও বাদীদের বিরুদ্ধে নোটিশ দেওয়ায় সামাজিক রাজনৈতিকভাবে হেয় প্রতিপন্ন ও মানহানি করা হয়েছে। নোটিশ পাওয়ার পর বাদীরা তাদের আইনজীবীর মাধ্যমে ওই নোটিশের জবাব এবং পাল্টা কারণ দর্শানোর নোটিশ দিলেও বিবাদী ফেরদৌস হাসান তার কোনো জবাব না দেওয়ায় তার বিরুদ্ধে ১০ কোটি টাকার মানহানি মামলা দায়ের করা হয়েছে।

এসব বিষয়ে সাংবাদিক ফেরদৌস হাসান বলেন, ‘আমি আমার পাওনা টাকা আদায়ের লক্ষ্যে ব্যবসায়িক প্যাডে জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আবদুল লতিফ বিশ্বাস ও পৌর মেয়র আশানূর বিশ্বাসকে একটি চিঠি দিয়েছি। এতে তাদের কোনো মানহানি করিনি।’

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
© All rights reserved © 2019 UkhiyaSangbad
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themesbaukhiyasa15