রবিবার, ২৯ নভেম্বর ২০২০, ১১:৫২ পূর্বাহ্ন

চকরিয়ায় বরযাত্রী আসার আগেই বিয়ে বাড়িতে হাজির ম্যাজিস্ট্রেট!

জিয়াবুল হক,চকরিয়া ;
  • আপডেট টাইম :: শনিবার, ২ নভেম্বর, ২০১৯
  • ৬৪

কক্সবাজারের চকরিয়া চকরিয়া উপজেলার সুরাজপুর মানিকপুর ইউনিয়নের একটি বাড়িতে বরযাত্রী আসার আগে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান আজিমুল হক আজিম ও থানা পুলিশের একটিদল নিয়ে হাজির হয়েছেন নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট মো.তানভীর হাসান। ওইসময় নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট ভ্রাম্যমান বসিয়ে তাৎক্ষনিক বিয়ের পিঁিড়তে বসতে যাওয়া দশম শ্রেণীর এক ছাত্রীকে বাল্যবিয়ে থেকে রক্ষা করেছেন। পাশাপাশি অপ্রাপ্ত বয়স্ক মেয়েকে অসময়ে বাল্য বিয়ে দেয়ার অপরাধে বাবাকে দশ হাজার টাকা জরিমানা করেছেন আদালত। গতকাল শুক্রবার বেলা ১১টার দিকে বউপজেলার সুরাজপুর মানিকপুর ইউনিয়নে ৪নং ওয়ার্ডের মধ্যম মানিকপুর এলাকায় ঘটেছে এ ঘটনা।

অভিযানের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন সুরাজপুর-মানিকপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আজিমুল হক আজিম। তিনি বলেন, গতকাল শুক্রবার মধ্যম মানিকপুর এলাকার বাসিন্দা আবু বকরের মেয়ে স্কুল পড়ুয়া দশম শ্রেণীর ছাত্রীর সঙ্গে একই উপজেলার বিএমচর ইউনিয়নের বহদ্দারকাটা এলাকার এক যুবকের সঙ্গে বিবাহের দিনক্ষন ধায্য করা হয়। বিয়ে উপলক্ষে কণের বাড়িতে চলছিলো সবধরণের আয়োজন। দুপুরে বরযাত্রী আসার কথা ছিল কণের বাড়িতে। তাঁর আগে চকরিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জানতে পারেন মেয়েটি এখনো অপ্রাপ্ত বয়স্ক এবং এটি বাল্য বিয়ের আয়োজন।

এরই জেরে এদিন বেলা ১১টার দিকে চকরিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নূর উদ্দিন মুহাম্মদ শিবলী নোমানের নির্দেশে কণের বাড়িতে উপস্থিত হয়ে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট তানভীর হোসেন। এসময় বাল্য বিবাহ নিরোধ আইনের অপরাধে ওই ছাত্রীর বাবাকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করেন আদালত।

জানতে চাইলে চকরিয়া উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট তানভীর হোসেন বলেন, সুরাজপুর মানিকপুর ইউনিয়নের বাসিন্দা আবু বকরের মেয়ে স্থানীয় মানিকপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণীতে পড়ছেন। আগামী বছর এসএসসি পরীক্ষা দেবে ওইছাত্রী। ইতোমধ্যে বিদ্যালয়ে দুইটি টেস্ট পরীক্ষাও দিয়েছে।

তিনি বলেন, বিদ্যালয়ে রক্ষিত জননিবন্ধন সনদ অনুযায়ী মেয়েটি এখনো অপ্রাপ্ত বয়স্ক। তারপরও তাকে জোর করে বাল্য বিয়ে দেয়ার খবর পেয়ে ইউএনও স্যারের নির্দেশে কণের বাড়িতে উপস্থিত হই। এরপর মেয়ের বাবা ও স্বজনরা বিষয়টি অকপটে স্বীকার করে। পরবর্তীতে ওই ছাত্রীকে বাল্য বিবাহের হাত থেকে রক্ষা করে বাল্য বিবাহ নিরোধ আইন ২০১৭ অনুযায়ী তাঁর বাবাকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা হয়েছে।

নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট তানভীর হোসেন বলেন, ১৮ বছরের পূর্বে ওই ছাত্রীকে বিয়ে দিবে না মর্মে তাঁর বাবা আবু বক্করের কাছ থেকে মুচলেকা নেওয়া হয়েছে। বিষয়টি দেখভালের জন্য স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান আজিমুল হককে জিন্মায় দেওয়া হয়েছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
© All rights reserved © 2019 UkhiyaSangbad
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themesbaukhiyasa15