শনিবার, ২৮ নভেম্বর ২০২০, ০৮:০৬ অপরাহ্ন

বুলবুলের আঘাত, ভোলায় ২২ ঘর বিধ্বস্ত, আহত ১৮

ডেস্ক রিপোর্ট :
  • আপডেট টাইম :: রবিবার, ১০ নভেম্বর, ২০১৯
  • ৮০

ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের প্রভাবে দ্বীপ জেলা ভোলার লালমোহন ও চরফ্যাশন উপজেলায় ঝোড়ো বাতাসে ২২টি ঘর বিধ্বস্ত ও ১৮ জন আহত হয়েছে।

শনিবার রাত ৯ টার দিকে লালমোহনের পশ্চিম চর উমেদ ও লর্ডহাডিঞ্জ ইউনিয়ন এবং চরফ্যাশনের ওসমানগঞ্জ ও এওয়াজপুর ইউনিয়নে বুলবুলের প্রভাবে ঝরো হাওয়া বইতে শুরু করে।

আহতদের মধ্যে প্রাথমিকভাবে যাদের নাম জানা গেছে তারা হলেন- পশ্চিম চর উমেদ ৭নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা আব্দুর রশিদ মাল, তার ছেলে ইমরান ও তিশান। একই উপজেলার লর্ডহাডিঞ্জ ইউনিয়নের চর পেয়ারীমোহন গ্রামের সাজেদা বেগম, তারেক, আরিফ, শরিফ ও মোস্তাফিজ।

এদের মধ্যে তারেকের অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে জানিয়েছে স্থানীয়রা। আহতদের মধ্যে কয়েকজনকে চরফ্যাশন হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

লালমোহন উপজেলার পশ্চিম চর উমেদ ইউনিয়নের বাসিন্দা মো. ইব্রাহীম জানান, রাত ৯টার দিকে বিকট আওয়াজ শুনতে পাই। মুহূর্তের মধ্যে ঘূর্ণিঝড় ওই এলাকার দুই তিনটি ঘরের চাল উড়িয়ে নিয়ে যায়। এ সময় বাড়ির গাছপালাও উপড়ে পরে।

তিনি আরও জানান, একই সময়ে ওই ইউনিয়নের পাশের এলাকা চরফ্যাশনের ওসমানগঞ্জ ইউনিয়নের ৬নং ওয়ার্ডের আব্দুল মোতালেব, তার ছেলে মামুন এবং বিল্লাল, আব্দুল মুনাফের ঘরও বিধ্বস্ত হয়।

অপরদিকে লালামোহন উপজেলার লর্ডহাডিঞ্জ ইউনিয়নের বাসিন্দা আনোয়ার রাব্বি জানান, একই সময়ে ইউনিয়নের চর পেয়ারীমোহন গ্রামে ঘূর্ণিঝড়ে ঘর-বাড়ি বিধ্বস্ত হয়ে অন্তত ১৫ জন আহত হয়েছে। ঝড়ে ৮ থেকে ১০টি ঘর বিধ্বস্ত হয়।

চরফ্যাশন উপজেলার এওয়াজপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মাহবুব আলম খোকন জানান, রাত সাড়ে ৮টার দিকে ওই ইউনিয়নের ৪, ৫ ও ৭নং ওয়ার্ডের সাতটি ঘর বিধ্বস্ত হয়েছে।

এ সময় এলাকার রাস্তাঘাটের গাছপালা উপড়ে পরে বলে জানান তিনি।

লালামোহন উপজেলা নির্বাহী অফিসার হাবিবুল হাসান রুমি জানান, লর্ডহাডিঞ্জ ইউনিয়নের রায়চাঁদ এলাকায় গাছ পড়ে একজন আহত হওয়ার খবর পেয়েছি। তবে বাকিদের খবর আমরা পাইনি।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
© All rights reserved © 2019 UkhiyaSangbad
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themesbaukhiyasa15