মঙ্গলবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৪:৩৬ পূর্বাহ্ন

ছেলেকে বাঁচাতে আইসিইউ ছেড়ে না ফেরার দেশে মা

উখিয়া সংবাদ ডেস্ক :
  • আপডেট টাইম :: বৃহস্পতিবার, ২৯ জুলাই, ২০২১
  • ৫৯

চট্টগ্রাম জেনারেল হাসপাতালে করোনা ওয়ার্ডের আইসিইউ বেড ছেলের জন্য ছেড়ে দিয়েছেন এক মা। সেই আইসিইউ বেডে এখন ছেলের চিকিৎসা চলছে। তবে বেঁচে নেই সেই মা।

মঙ্গলবার (২৭ জুলাই) দিবাগত রাতে চট্টগ্রাম জেনারেল হাসপাতালের আইসিইউতে এ ঘটনা ঘটেছে। বুধবার (২৮ জুলাই) দিবাগত রাত ১টার দিকে ঢাকা পোস্টকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন চট্টগ্রাম জেনারেল হাসপাতালের করোনা ইউনিটের ফোকাল পারসন ও সিনিয়র কনসালটেন্ট ডা. আব্দুর রব।

তিনি বলেন, ৬৫ বছর বয়সী বৃদ্ধ মা ৩৮ বছর বয়সী ছেলের জন্য আইসিইউ ছেড়ে দিয়েছেন। পুরো ঘটনাই আমাদের চোখের সামনে ঘটেছে। কিন্তু আমরা নিরূপায়। মা বেঁচে নেই। মায়ের ত্যাগের কারণে ছেলেটি এখনও বেঁচে আছে। তবে মা যা করেছেন তাতে আমাদের সায় ছিল না। তারপরও উনার জোরাজুরিতেই আমরা নিরূপায় হয়ে তাকে আইসিইউ বেড থেকে নামিয়েছি। মায়ের ছেড়ে দেওয়া আইসিইউ সিটে ছেলে শিমুল পাল এখনও বেঁচে আছেন। তার অবস্থা আশঙ্কাজনক।

জানা গেছে, চট্টগ্রামের সিএনবি কলোনী এলাকার ৬৫ বছর বয়সী মা ও ৩৮ বছর বয়সী ছেলে করোনা আক্রান্ত হয়ে ভর্তি হয়েছিলেন চট্টগ্রাম জেনারেল হাসপাতালে। মায়ের অবস্থা সংকটাপন্ন হওয়ায় ২২ জুলাই তাকে আইসিইউতে নিয়ে যান চিকিৎসকরা। ছেলে ভর্তি ছিলেন সাধারণ ওয়ার্ডে। ধীরে ধীরে ছেলের অবস্থাও খারাপ হতে থাকে। তারই একপর্যায়ে মঙ্গলবার আইসিইউয়ের প্রয়োজন হয় ছেলের। কিন্তু চট্টগ্রাম জেনারেল হাসপাতালের ১৮টি আইসিইউ বেডেই রোগী ভর্তি তখন। ছেলের জন্য আইসিইউ না পাওয়ার সংবাদ চলে যায় আইসিইউতে ভর্তি থাকা মায়ের কানে। তাতেই ছটফট করতে থাকেন মা। নিজের হাতে লাইফ সাপোর্টের সরঞ্জাম খুলে ছেলেকে আইসিইউতে আনতে চিকিৎসকদের ইশারা দেন বৃদ্ধ মা। হাসপাতালের দায়িত্বরত চিকিৎসকরা বলেন, শত চেষ্টা করেও মাকে বোঝাতে পারেনি আমরা। বাধ্য হয়ে মাকে নামিয়ে ছেলেকে তোলা হয় আইসিইউতে।

হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, মা হাসপাতালের আইসিইউ থেকে নামার ঘণ্টা দুয়েকের মধ্যেই মারা যান। অন্যদিকে জীবন মৃত্যুর মাঝে দাঁড়িয়ে আছেন ছেলে।

বর্তমানে চট্টগ্রামের সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতালগুলোতে কোথাও আইসিইউ শয্যা খালি নেই। সবগুলো আইসিইউ বেড রোগীতে পরিপূর্ণ বলে জানা গেছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
© All rights reserved © 2019 UkhiyaSangbad
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themesbaukhiyasa15