সোমবার, ২৩ নভেম্বর ২০২০, ১১:০৬ অপরাহ্ন

রোহিঙ্গা ক্যাম্প ভিত্তিক মানব পাচারকারী সিন্ডিকেট সক্রিয়

নিজস্ব প্রতিবেদক :
  • আপডেট টাইম :: শুক্রবার, ২২ নভেম্বর, ২০১৯
  • ৫৭

মিয়ানমারের বাস্তুচ্যুত রোহিঙ্গা ক্যাম্পে ঢাকা কেন্দ্রিক ৫/৬ জনের একটি শক্তিশালী সিন্ডিকেট মানবপাচারে উৎপ্রোত ভাবে জড়িত। তাদের টার্গেট রোহিঙ্গা যুবতী নারী। এক শ্রেণির রোহিঙ্গা পাচারকারীদের প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষ মদদে উক্ত সিন্ডিকেট আইন প্রয়োগকারী সংস্থার চোখ ফাঁকি দিয়ে মানবপাচার অব্যাহত রেখেছে। রোহিঙ্গাদের নিয়ন্ত্রণে ক্যাম্পে নিয়োগকৃত প্রথম শ্রেণির ম্যাজিস্ট্রেট আরফাত হোসেন এসব কথা বলেন।

বৃহস্পতিবার বেলা ১১টার দিকে উপজেলা পরিষদ সম্মেলন কক্ষে এনজিও সংস্থা ইপসা কর্তৃক আয়োজিত সেমিনারে তিনি বলেন, রোহিঙ্গাদের মধ্যে কিছু সংখ্যক লোক মানবপাচার কাজের মতো গর্হিত কাজে জড়িত থাকায় ঢাকা কেন্দ্রিক পাচারকারী সিন্ডিকেট নির্বিঘেœ কিশোরী যুবতী সহ বিভিন্ন শ্রেণির পেশার রোহিঙ্গা পাচারকারীদের খপ্পরে সর্বস্ব হারাচ্ছে। উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) আমিনুল এহছান খানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত মানবপাচার প্রতিরোধ বিষয়ক সভায় ইপসার প্রজেক্ট ম্যানেজার জিকু বড়–য়া তার বক্তব্যে পাচারকারীদের কবল হতে উদ্ধার পাওয়া ২২ জন নারী শিশু একটি তালিকা প্রদর্শন করে বলেন, ইপসা পাচার প্রতিরোধ ও পাচারকারীদের কবল থেকে উদ্ধার পাওয়া রোহিঙ্গা নারী পুরুষ ও শিশুদের পূর্ণবাসন করছে।
জবাবে অবহিত করণ সভার প্রধান অতিথি উপজেলা চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ হামিদুল হক চৌধুরী বলেন, রোহিঙ্গা পাচারকারী চক্র ক্যাম্পে স্থান করে নিয়েছে। যে কারণে মানবপাচার অপ্রতিরোধ্য হয়ে উঠেছে। তিনি বলেন, যেসব রোহিঙ্গা পাচারকারীদের আশ্রয় দিয়ে সহযোগীতা করছে তাদের খুঁজে বের করে আইনের আওতায় আনা না হলে মানব পাচার বন্ধ করা সম্ভব হবে না। তিনি আরো বলেন, ঢাকা, রাজশাহী সহ দেশের উত্তরাঞ্চলে যেসব রোহিঙ্গা পুলিশের হাতে ধরা পড়ছে ওইসব রোহিঙ্গাদের উখিয়া থানায় হস্তান্তর করা হচ্ছে। তাদের কথা শুনলে আসল মানবপাচারকারী ধরতে বেশি সময় লাগবে না। এসব পাচারকারী চক্র রোহিঙ্গা নারীদের গার্মেন্টসে চাকুরীর প্রলোভন দিয়ে ঢাকায় নিয়ে যায়। পরে তাদের দেহ ব্যবসায় বাধ্য করা হয় বলে বিভিন্ন সূত্রে জানা গেছে।
আবার কিছু সংখ্যক মানবপাচাকারী বিদেশে পাঠানোর প্রলোভন দিয়ে রোহিঙ্গাদের তাদের গন্তব্য স্থানে নিয়ে যায়। সেখানে কয়েকদিন রাখার পর তাদের হাতে থাকা সহায় সম্পত্তি ছিনিয়ে নিয়ে মারধর করে তাড়িয়ে দেয়। বর্তমান অবস্থার প্রেক্ষাপট উপস্থাপন করতে গিয়ে তিনি বলেন, আপাতত মানবপাচার আগের তুলনায় অনেকে কমেছে। উক্ত সেমিনারে উপস্থিত ছিলেন, প্রেস ক্লাবের সভাপতি সরওয়ার আলম শাহীন, সাবেক সভাপতি রফিক উদ্দিন বাবুল।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
© All rights reserved © 2019 UkhiyaSangbad
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themesbaukhiyasa15