বৃহস্পতিবার, ২৬ নভেম্বর ২০২০, ১২:০২ অপরাহ্ন

‘টাকা’ নিয়েও আসামি বানালেন আ.লীগ নেতা

ডেস্ক রিপোর্ট :
  • আপডেট টাইম :: সোমবার, ২৫ নভেম্বর, ২০১৯
  • ৭৬

এক ডাকাত হত্যা মামলায় দলের কয়েকজনের কাছ থেকে টাকা নেওয়া ও ফের তাদেরই আসামি বানানোর অভিযোগ উঠেছে মো. সোহরাব হোসেন নামে আওয়ামী লীগের নেতার বিরুদ্ধে। অভিযুক্ত ব্যক্তি বরগুনার পাথরঘাটা উপজেলার কালমেঘা ইউনিয়নের সাবেক ইউপি সদস্য ও বর্তমান ইউনিয়ন আ.লীগের সাধারণ সম্পাদক।

সোহরাবের বিরুদ্ধে অভিযাগকারীরা হলেন, কালমেঘা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ইকবাল হোসেন ও নেতা মো. রিপন খান এবং মো. মামুন রেজা। জামিনে বের হয়ে আজ সোমবার পাথরঘাটা প্রেসক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনে লিখিত অভিযোগ করেন তারা।

অভিযোগ থেকে জানা গেছে, গত বছর উপজেলার কালমেঘা ইউনিয়নে গণপিটুনিতে মারা যান স্থানীয় ডাকাত দলের সদস্য বেলাল। এ ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে প্রায় ৪০০ জনকে অজ্ঞাত আসামি করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করে। তদন্ত শেষে হত্যা মামলায় ১১ জনের বিরুদ্ধে চার্জশিট দাখিল করে পুলিশ। এতে নাম ছিল কালমেঘা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ইকবাল হোসেন ও নেতা মো. রিপন খান এবং মো. মামুন রেজার।

পুলিশ গ্রেপ্তার করে আদালতে তুললে তাদের জেল হাজতে পাঠান বিচারক। দুই মাস কারাভোগের পর তারা উচ্চ আদালত থেকে জামিন নেন।
ভুক্তভোগীদের অভিযোগ, সোহরাব মেম্বার তাদের কাছ থেকে মামলার জন্য টাকা নিয়েছিলেন। টাকা নিয়ে তিনি কিছু করেননি। বরং জাতীয় পরিচয়পত্রে থাকা নাম-ঠিকানা নিশ্চিত করে হত্যা মামলার আসামি হিসেবেই বহাল রাখতে নির্দেশ দেন। অন্যায়ভাবে তাদের হত্যা মামলা আসামি করা হয়েছে। এতে দলের সুনাম ক্ষুণ্নের পাশাপাশি হয়রানিও করা হয়েছে।

পাথরঘাটা প্রেসক্লাবের সংবাদ সম্মেলনে ক্ষমতার অপব্যবহার ও দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গের দায়ে সোহরাবের বিচার চেয়েও উপজেলা আ.লীগের সভাপতি-সম্পাদক বরাবর লিখিত অভিযোগ করেন ইকবাল, রিপন ও মামুন।

এ বিষয় পাথরঘাটা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট জাবির হোসেন বলেন, ‘আমরা ইউনিয়ন আ.লীগের সম্মেলন নিয়ে ব্যস্ত, তবে বিষয়টি সাংগঠনিকভাবেই ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

এ বিষয়ে অভিযুক্ত সাবেক ইউপি সদস্য মো. সোহরাব হোসেন বলেন, ‘রাজনৈতিক প্রতিহিংসা পরায়ণ হয়ে আমার বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ করেছেন তারা। গণপিটুনিতে বেলাল মারা যাওয়ার পরে আমার অফিসে পুলিশ এসে তাদের জাতীয় পরিচয়পত্র নিয়েছে। আমার হাতে কোনো টাকা পয়সা দেয়নি। এতে আমার কোনো হাত নেই।’

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
© All rights reserved © 2019 UkhiyaSangbad
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themesbaukhiyasa15