মঙ্গলবার, ২৪ নভেম্বর ২০২০, ০৫:২১ অপরাহ্ন

এসএসসি’র ফরম পূরণ, উপজেলা চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে নানা অভিযোগ

ডেস্ক রিপোর্ট :
  • আপডেট টাইম :: শুক্রবার, ৬ ডিসেম্বর, ২০১৯
  • ৭৯

এসএসসির পরীক্ষার ফরম পূরণে স্বজন প্রীতি ও নানা অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে মুন্সিগঞ্জের গজারিয়ায় বালুয়াকান্দি ডা: আব্দুল গফফার স্কুলের ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতি ও উপজেলা চেয়ারম্যান আমিরুল ইসলামের বিরুদ্ধে।

চলতি বছর এসএসসি পরীক্ষার ফরম পূরণে স্বজনপ্রীতি ও অতিরিক্ত অর্থ আদায়ের অভিযোগে আজ বৃহস্পতিবার সকালে বিদ্যালয়ের মাঠে বিক্ষোভ মিছিল করেন ভুক্তভোগী শিক্ষার্থী ওঅভিভাবকরা।

বিক্ষোভ কর্মসূচিতে অংশ নেয়া শিক্ষার্থী, অভিভাবকদের দাবি, এসএসসি পরীক্ষার ফরম পূরণে ৫ হাজার থেকে ১০ হাজার টাকা নেয়া হচ্ছে। এছাড়া নানা অনিয়ম ও বৈষম্যের শিকার শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা সুষ্ঠু তদন্তের দাবিতে এ কর্মসূচি পালন করেন।

এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবর লিখিত অভিযোগে জানান মুন্সীগঞ্জ জেলা যুবলীগের ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক ও স্থানীয় বালুয়াকান্দি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শহিদুজ্জামান জুয়েল। তিনি জানান, আত্মীয় ও দলীয় কর্মীর মেয়েদের ৫ বিষয়ে ফেল করার পরও ফরম ফিলাপের সুযোগ দিয়েছেন পরিচালনা পর্ষদ। এ বিষয়ে যথাযথ ব্যবস্থা না নিলে যেকোনো সময় পরিস্থিতি অবনতি ঘটতে পারে।

শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের মধ্যে রিনা বেগম, সোনিয়া, রিনা আক্তার বলেন, পাঁচ থেকে ছয় বিষয়ে অকৃতকার্য শিক্ষার্থীদের কাছ ৫ থেকে ১০ হাজার টাকা নিয়ে ফরম পূরণের সুযোগ দেয়া হচ্ছে। পক্ষান্তরে আমাদের ছেলে-মেয়েরা তিন-চার বিষয়ে অকৃতকার্য হয়েছে। তাদেরকে না নিয়ে টাকার বাণিজ্য এবং স্বজনপ্রীতি করেছেন শিক্ষক ও ব্যবস্থাপনা কমিটির একাধিক সদস্য।

তারা জানান, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটির ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতি, গজারিয়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আমিরুল ইসলাম এর আত্মীয় ও নিজ রাজনৈতিক ব্লগের ভাটের চর গ্রামের কাসেম মিয়ার ভাতিজি ৫ বিষয়ে ফেল ও এর মধ্যে এক বিষয়ে শূন্য পাওয়ার পরও তাকে ফরম পূরণের সুযোগ দেয়া হয়। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটির ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতি হওয়ায় প্রভাব খাটিয়ে তিনি তাকে ফরম পূরণের সুযোগ করে দেন বলে অভিযোগ রয়েছে।

সার্বিক বিষয়ে মোবাইল ফোনে প্রধান শিক্ষক মো: বশিরউল্লাহ অতিরিক্ত অর্থ আদায়ের অভিযোগ অস্বীকার করে জানান, ব্যবস্থাপনা কমিটির সিদ্ধান্তের বাইরে যাওয়ার উপায় নেই শিক্ষকদের।

উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মো: জাকির হোসেন জানান, অতিরিক্ত টাকা নেয়ার বিষয়টি তিনি অবগত নন। অনিয়ম রোধে বারবার সতর্কতার নোটিশ দেয়া হয়েছে। তিনি বলেন, স্কুল ব্যবস্থাপনা কমিটি অনিয়ম করলে তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটির ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতি, গজারিয়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আমিরুল ইসলামের সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে তাকে পাওয়া যায়নি।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
© All rights reserved © 2019 UkhiyaSangbad
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themesbaukhiyasa15