সোমবার, ১৭ মে ২০২১, ০১:০৬ পূর্বাহ্ন

এমপির হুমকিতে ছুটিতে গেলেন ইউএনও

ডেস্ক রিপোর্ট :
  • আপডেট টাইম :: শুক্রবার, ৬ মার্চ, ২০২০
  • ৯২

২৪ ঘণ্টার মধ্যে প্রত্যাহার চেয়ে কুমিল্লা-২ (হোমনা ও তিতাস) আসনের সংসদ সদস্য সেলিমা আহমাদ মেরীর সংবাদ সম্মেলন করার পর তার সেই বেঁধে দেওয়া সময়ের মধ্যেই এক সপ্তাহের ছুটি নিয়ে কর্মস্থল ত্যাগ করেছেন হোমনার ইউএনও তাপ্তি চাকমা। ভারপ্রাপ্ত উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা হিসেবে বৃহস্পতিবার থেকে দায়িত্ব পালন করছেন হোমনার সহকারী কমিশনার (ভূমি) তানিয়া ভূঁইয়া।

গত মঙ্গলবার দুপুরে ২৪ ঘণ্টার মধ্যে হোমনার ইউএনওর প্রত্যাহার চেয়ে নিজ রাজনৈতিক কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলন করেন সংসদ সদস্য সেলিমা আহমাদ মেরী। সংবাদ সম্মেলনে অভিযোগ করেন, হকার্স লীগ সভাপতি মো. মমিন গত রবিবার রাতে সদর বাসস্ট্যান্ড এলাকায় মুজিব শতবর্ষের একটি ব্যানার টাঙাতে গেলে উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যানের গাড়িচালক মো. শাহজালাল কর্তৃক বাধাপ্রাপ্ত হন। এ ব্যাপারে ইউএনওর কাছে অভিযোগ করা হলেও তিনি কোনো ব্যবস্থা নেননি।

সাংসদ মেরী আরও বলেন, আমি যখন ইউনওকে ফোন করি উনি দুটি কথা বলেছেন যা আমি গ্রহণ করিনি। প্রথমত বলেছেন, ‘এটা ড্রাইভারের জায়গা, সেখানে সে (ড্রাইভার) ব্যানার লাগাতে মানা করেছে।’ আমার কথা হচ্ছে, বাংলাদেশের আকাশ, মাটি, এমন কোনো জায়গা নেই যেখানে বঙ্গবন্ধুর ছবি লাগানো যাবে না। আর ড্রাইভারের ওই জায়গাটাও তো পৌরসভার জায়গা। ইউএনও দ্বিতীয় যেটি বলেছেন, ‘তা হলে উপজেলা চেয়ারম্যানের সঙ্গে কথা বলেন।’

আমি প্রশাসনকে ফোন করেছি। প্রশাসনকে বেতন দেয় সরকার। ইউএনও সরকারের বেতনভুক্ত কর্মচারী। সুতরাং এখানে ইউএনওর একটা বড় দায়িত্ব আছে। এ ব্যাপারে ডিসি সাহেবকেও বলেছি।

এর আগে ইউএনওর প্রত্যাহার চেয়ে হকার্স লীগ, ছাত্রলীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ একযোগে বিক্ষোভ প্রদর্শন ও সমাবেশ করে। এর পরই তিনি তাৎক্ষণিকভাবে সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করেন।

এ ব্যাপারে হকার্স লীগ সভাপতি মমিন বলেন, ‘আমি বাসস্ট্যান্ডে ব্যানার লাগাতে গেলে উপজেলা চেয়ারম্যানের ড্রাইভার শাহজালাল আমাদের বাধা দেন এবং মারধর করতে আসেন। ব্যানার লাগাতে না পেরে চলে আসি। পরে ইউএনওর কাছে অভিযোগ করি। ইউএনও আমার কথা শুনে শাহজালালকে ডেকে আনেন। শাহজালাল এসে তার বক্তব্য অস্বীকার করেন। পরে ইউএনও তাকে সরি বলতে বলেন। আমি বিচার না মেনে চলে আসি।’

ড্রাইভার শাহজালাল বলেন, বাসস্ট্যান্ডে আমাদের একটি ছোট দোকান আছে। সেটির চালায় উঠে ব্যানার লাগানোর সময় তাদের বলেছি, চালাটি ভেঙে যাওয়ার সম্ভাবনা আছে। আমি তাকে বকাঝকা কিংবা মারামারি করিনি।

সংসদ সদস্যের অভিযোগ প্রসঙ্গে  বৃহস্পতিবার মুঠোফোনে ইউএনও তাপ্তি চাকমা বলেন, হকার্স লীগ সভাপতি মমিন একটি অভিযোগ করেছিলেন যে, মুজিববর্ষের ব্যানার লাগাতে গিয়ে উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যানের ড্রাইভার শাহজালাল কর্তৃক বাধাপ্রাপ্ত হন। অভিযোগটি পেয়ে তাকে (শাহজালাল) ডেকে আনি। দুপক্ষের কথা শোনার সময় তারা উচ্চস্বরে কথা বলেন। তখন তাদের নিবৃত্ত করতে উভয়কে সাজা দেওয়ার ভয় দেখাই। সঙ্গে সঙ্গে শাহজালাল ঘটনার জন্য দুঃখ প্রকাশ করে মমিনের কাছে ক্ষমা চেয়ে জড়িয়ে ধরে। এতে উভয়েই সন্তুষ্ট হয়ে আমার অফিস থেকে বের হয়ে যায়। কিন্তু পরে আবার কী হলো, বুঝতে পারছি না। তিনি আরও বলেন, একজন সংসদ সদস্য এত ছোট বিষয় নিয়ে এভাবে আমাকে হুমকি দেবেন, হোমনা ছাড়ার আলটিমেটাম দেবেন তা ভাবতেও পারিনি। আমি নাকি রাজাকার! রাজাকার কী এর সংজ্ঞাও আমি জানি না। আমি এত অপছন্দের হয়ে গেলাম। ছুটি প্রসঙ্গে তিনি বলেন, বিষয়টি বিধি মোতাবেক ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ অবগত আছেন। বর্তমানে আমি হোমনার ইউএনও। আমি এসিল্যান্ডকে ভারপ্রাপ্ত হিসেবে দায়িত্ব দিয়ে সাত দিনের ছুটিতে আছি, পরে যা নির্দেশনা আসবে তাই করব।

এ বিষয়ে একাধিকবার যোগাযোগ করেও সংসদ সদস্য সেলিমা আহমাদ মেরীর মন্তব্য জানা সম্ভব হয়নি।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
© All rights reserved © 2019 UkhiyaSangbad
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themesbaukhiyasa15